360 x 130 ad code [Sitewide - Site Header]

সিলেটে ক্রমবর্ধমান ছিনতাইয়ের প্রধান টার্গেট শাবি শিক্ষার্থী, প্রতিরোধে প্রয়োজন কিছু সহজ সচেতনতা

Share via email

chintai1বিশেষ প্রতিনিধিঃ

সিলেটে এই কয়েকমাসে ছিনতাইয়ের ঘটনা অত্যধিক মাত্রায় বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এইসব ছিনতাইয়ের ঘটনার শিকার হওয়া একটা বড় অংশই শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। বেশ কিছু ঘটনা বিশ্লেষণ করে বলা যায়, কিছু সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেই ছিনতাই অনেকাংশেই এড়ানো যায়।

গত কয়েকমাসের মধ্যে ছিনতাইয়ের শিকার হওয়া শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে ঘটনাগুলোর মধ্যে বেশ কিছু মিল খুঁজে পাওয়া গেছে। এর মধ্যে আর্কিটেকচার  বিভাগের একজন শিক্ষার্থীর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সর্বাধিক, প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকা। ঘটনার বিবরণীতে জানা যায়, ঘটনার দিন ভোর পাঁচটায় কদমতলী থেকে নেমে রিক্সায় করে বাড়ি থেকে ফেরার পথে মদিনা মার্কেট পাড় হয়েই নেহারি পাড়ার শাহজালাল সুপার মার্কেট সংলগ্ন ছোট ব্রিজটার সামনে আসতেই একদল ছিনতাইকারীর মুখে পড়েন ঐ শিক্ষার্থী। এরপর ধারালো অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তার সদ্য কেনা ডিএসএলআর ক্যমেরা, ল্যাপটপ এবং কাপড়চোপড় ভর্তি ব্যাগগুলো নিয়ে নেয়। থানায় সাধারন ডায়েরী করা হলেও কোন লাভ হয়নি। এই স্থানটিতে বেশ কয়েকটি ছিনতাইয়ের ঘটনার খবর পাওয়া যায়, যার বেশিরভাগই সংঘটিত হয় খুব ভোরে এবং তারা সবাই রিক্সার যাত্রী ছিল।

আরেকটি ঘটনার শিকার, পিএমই বিভাগের শিক্ষার্থী। সময় সকাল ৬ টা ৪৫ মিনিট। স্থান পাঠানটুলা নবাবি মসজিদের সামনে । লক্ষ্য করার ব্যাপার এটা যে, এবারেও পরিবহনটি রিক্সা এবং একটা স্পিড ব্রেকারের সামনে। ক্ষয়ক্ষতি ১৫০০০ টাকা।

এরকম আরও কয়েকটি ঘটনার শিকার ইকোনমিক্স এর দুইজন শিক্ষার্থী এবং তাদের মধ্যে একজন নারী। এবং এ দুটি ক্ষেত্রেই ঘটনা সংঘটনের সময়কাল রাত ৮ টা এবং ১০ টা। এবং কাকতালীয়ভাবে এখানেও পরিবহন হিসেবে সেই রিক্সা। ঘটনা সংঘটনের স্থান পাঠানটুলা থেকে আম্বরখানার মধ্যবর্তী বেশ কিছু নির্জন স্থানে।

এরপরের ঘটনা একটু অন্য রকম। শিক্ষার্থী আইপিই বিভাগের ছাত্র। ছুটিতে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিল। সময় আনুমানিক রাত ৮ টা। ভার্সিটি গেট থেকেই স্বাভাবিকভাবেই সিএনজি অটোরিক্সাতে ওঠে ছাত্রটি। সৌভাগ্যক্রমে (!) একটাই মাত্র সিট ফাঁকা ছিল সেখানে। সিএনজি অটোরিক্সার গন্তব্য বন্দর হলেও, সুবিধবাজার পয়েন্টে ডানে মোড় নেওয়ার একটু পরেই একটা নির্জন স্থানে গিয়ে থেমে যায় সিএনজি অটোরিক্সাটি। কাপড়ের ব্যাগে ল্যাপটপ থাকায় সেটি ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেলেও নগদ টাকা, দামি মোবাইল নিতে ভুল করেনি ছিনতাইকারী চক্র।

আরও কয়েকটি ঘটনার শিকার পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক কিছু শিক্ষার্থী। এদের বেশিরভাগই নারী। জিন্দাবাজারে বিভিন্ন মানের এবং ধরনের রেস্টুরেন্টগুলো আনুসাঙ্গিক বিভিন্ন কারণেই শাবির ভোজনরসিক শিক্ষার্থীদের প্রথম পছন্দ। সন্ধ্যার পরপর সেখান থেকে ফেরার পথে স্টেডিয়ামের পেছনে এবং চৌহাট্টা থেকে স্টেডিয়াম আসার পথে কিছুটা আলোআঁধারির খেলার মাঝে নিজেদের মোবাইল এবং ভ্যানিটি ব্যাগ হারিয়েছেন। এবং এসকল ক্ষেত্রেই পরিবহণ সেই রিক্সা। কখনও দ্রুতগতির মোটরসাইকেল এবং কখনও দৌড়ে এসে আচমকা হ্যাঁচকা টানে ছিনিয়ে নিয়ে চম্পট দিয়েছে ছিনতাইকারী।

বিশেষ অনুসন্ধানে জানা যায়, সিলেটে বেশ কয়েকটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারীচক্র সক্রিয় রয়েছে। যাদের মধ্যে স্থানীয় চক্র ছাড়াও দেশের শীর্ষ কিছু ছিনতাইকারী চক্রের প্রধান টার্গেটে এখন সিলেট।

এসকল ঘটনা বিশ্লেষণ করে কিছু সতর্কতামূলক পদক্ষেপ ছিনতাই প্রতিরোধে অনেকটাই সহায়ক হতে পারেঃ
১. ভোর বেলা এবং সন্ধ্যার পর যথাসম্ভব রিক্সায় যাতায়াত এড়িয়ে চলুন।

২. রিক্সার ক্ষেত্রে উঁচু জায়গাগুলোতে উঠতে এবং স্পিড ব্রেকারের সামনে গতিবেগও কমে যায়, অনেক সময় রিক্সাওয়ালাকে নেমে টেনে তুলতে হয়। এই গতিবেগ কম থাকার ব্যাপারটাকে ছিনতাইকারীরা ব্যাবহার করে। এক্ষেত্রে ইঞ্জিনচালিত পরিবহন সহায়ক হতে পারে।

৩. রিক্সার ক্ষেত্রে জনবল কম থাকে। এটাও ছিনতাইকারীদের জন্য সুবিধাজনক। যদিও একটা উদাহরণ থেকে দেখা যায় সি এন জি অটোরিক্সাতেও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটতে দেখা গেছে। তবে রিক্সাযাত্রীই বেশি ছিনতাইয়ের শিকার হয়ে থাকেন।

৪. রিক্সায় বা সিএনজি অটোরিক্সায় থাকাকালীন মোবাইল এবং ভ্যানিটিব্যাগ হাতে রাখলে অবশ্যই সচেতন থাকা উচিৎ। এমনভাবে ধরে রাখা উচিৎ যেন হ্যাঁচকা টান দিয়ে কেউ নিতে না পারে।

Share via email

ক্যাটাগরি অনুযায়ী সংবাদ

এই সংবাদটি ১২ নভেম্বর ২০১৪ইং, বুধবার ২৩টা ০৬মিনিটে মিশ্র সংবাদ, শীর্ষ সংবাদ, সর্বশেষ ক্যাটাগরিতে প্রকাশিত হয়। এই সংবাদের মন্তব্যগুলি স্বয়ঙ্ক্রিয় ভাবে পেতে সাবস্ক্রাইব(RSS) করুন। আপনি নিজে মন্তব্য করতে চাইলে নিচের বক্সে লিখে প্রকাশ করুন।

Leave a Reply

300 x 250 ad code innerpage

Recent Entries

120 x 200 [Sitewide - Site Festoon]
প্রধান সম্পাদক: সৈয়দ মুক্তাদির আল সিয়াম, বার্তা সম্পাদক: আকিব হাসান মুন

প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার প্রধান সম্পাদকের। Copyright © 2013-2017, SUSTnews24.com | Hosting sponsored by KDevs.com