360 x 130 ad code [Sitewide - Site Header]

জোটের ধর্মঘটে ছাত্রলীগের হামলা

Share via email

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবেদে সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেয় প্রগতিশীল ছাত্র জোট। তারই ধারাবাহিকতায় জানুয়ারি ২৯ সকাল সাড়ে এগারোটায় শাবিপ্রবির প্রধান ফটকে আয়োজিত ধর্মঘট পরবর্তী সমাবেশে ছাত্রলীগ হামলা করে। এতে অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন।

আজ সকাল থেকে প্রগতিশীল ছাত্র জোট শাবিপ্রবি প্রাঙ্গণে অবস্থান নিয়েছিল । পরবর্তিতে মিছিল সহকারে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রধান ফটকে সমাবেশে মিলিত হয় । এসময় তারা প্রধান ফটক অবরোধ করে রাখে। এতে শিক্ষার্থীদের বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

সমাবেশের শেষ পর্যায়ে ছাত্রলীগের একদল কর্মী জোরপূর্বক ব্যানার টেনে ছিঁড়ে ফেলে এবং হামলা চালায়। হামলায় গুরুতর আহত হয় ছাত্রফ্রন্টের কর্মী আইপিই বিভাগের শিক্ষার্থী জয়দ্বীপ দাস ও সাস্ট সাহিত্য সংসদের সভাপতি ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী শুভম ঘোষ, ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক নাযিরুল আজম,মঈনুদ্দিন মিয়া, ছাত্রজোটের নেতা নগর শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবাইয়াত আহমেদ, ছাত্র ফ্রন্টের কর্মি নাইম আশরাফ, আব্দুল্লাহ কাফি প্রমুখ। (হামলার ভিডিও)

হামলার পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আন্দোলনকারী প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সাথে দেখা করেন এবং হামলাকারিদের দ্রুত বিচার করার আশ্বাস দেন ।পরে ক্যাম্পাসে প্রগতিশীল ছাত্র জোট বিক্ষোভ মিছিল করে এবং প্রশাসন থেকে দ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেয়া হলে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচি দেয়ার ঘোষণা দেয়।

তবে হামলার দায় অস্বীকার করেছে ছাত্রলীগ। হামলার পরপর তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলন ডেকে অবস্থান কর্মসূচিতে হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগ জড়িত নয় বলে দাবি করেছে শাখা ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।

শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান বলেন, ‘হালাকারীরা ছাত্রলীগের কেউ নয়, এ হামলার দায়ভার শাবিপ্রবি ছাত্রলীগ নিবে না। শাবিপ্রবি ছাত্রলীগকে বিতর্কিত করতে কিছু দুষ্কৃতিকারীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের দিক-নির্দেশনায় কেউ এ কাজ করেনি। কেন্দ্র থেকে আমাদের উপর নির্দেশ ছিলো এ আন্দোলনে কোনো ধরণের বাধা না দেয়া। আমরা এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

তবে এ হামলায় মুশফিকুর রহমান ভূইয়া ও তার সহযোগীদের প্রত্যক্ষভাবে হামলায় অংশ নিতে দেখা গেছে। মুশফিক শাখা ছাত্রলীগের কোন পদ না পেলেও ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী হিসবে “পদহীন নেতা” পরিচিতি পান। তিনি বলেন আমি তাদের গেইট খুলে দিতে বললেও তারা রাজি হয় নাই।

এদিকে সাধারণ সম্পাদক দায় অস্বীকার করে নিলেও শাখা ছাত্রলীগের সিনিওর সহসভাপতি আবু সাঈদ আকন্দ তার ফেসবুক প্রোফাইলে ক্ষোভ প্রকাশ করে লিখেন “একজন মুশফিকুর রহমান একদিনে তৈরি হয়না। তিনি মুশফিকের প্রশংসা করে, অন্যান্য নেতাদের সাংগঠনিক সমর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেন।

গত নভেম্বর ১৭ বিশ্বিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার দিন ক্যাম্পাসে পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিল ছাত্রলীগ, তার দুইমাস না যেতেই আবার সহিংস কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়ল তারা।

 

 

Share via email

ক্যাটাগরি অনুযায়ী সংবাদ

এই সংবাদটি ৩০ জানুয়ারি ২০১৮ইং, মঙ্গলবার ০টা ০৪মিনিটে আন্দোলন, ছাত্রলীগ, প্রগতিশীল ছাত্রজোট, মিশ্র সংবাদ, সর্বশেষ, হরতাল/ধর্মঘট ক্যাটাগরিতে প্রকাশিত হয়। এই সংবাদের মন্তব্যগুলি স্বয়ঙ্ক্রিয় ভাবে পেতে সাবস্ক্রাইব(RSS) করুন। আপনি নিজে মন্তব্য করতে চাইলে নিচের বক্সে লিখে প্রকাশ করুন।

Leave a Reply

300 x 250 ad code innerpage

Recent Entries

120 x 200 [Sitewide - Site Festoon]
প্রধান সম্পাদক: সৈয়দ মুক্তাদির আল সিয়াম, বার্তা সম্পাদক: আকিব হাসান মুন

প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার প্রধান সম্পাদকের। Copyright © 2013-2017, SUSTnews24.com | Hosting sponsored by KDevs.com